ফ্রন্ট-ইন্ড এন্ড ব্যাক-ইন্ড অব ওয়ার্ডপ্রেস

বিষয়গুলো হয়তো সবার-ই জানা, তবু আর একবার বলে ফেলি।
যেকোনো একটা ওয়েবসাইটের দুটো দিক আছে- এক. ফ্রন্ট-ইন্ড বা সম্মুখ দিক এবং ব্যাক-ইন্ড বা পেছন দিক। আসলে সত্যি কথা হচ্ছে- পৃথিবীর যাবতীয় কিছুর-ই দুটি দিক আছে। যেমন-
ভালো – খারাপ
সাদা – কালো
সত্যি – মিথ্যা
সামন – পেছন

এভাবে আরও অনেক অনেক। তো আমাদের ওয়ার্ডপ্রেসেরও দুটি দিক আছে…থাকবে এটাই স্বাভাবিক… 🙂 । তো চলুন জেনে নেয়া যাক ওয়ার্ডপ্রেসের দুটি দিক সম্পর্কে।

ওয়ার্ডপ্রেসের ফ্রন্ট-ইন্ড

বুঝতেই পারছেন সম্মুখ দিককে বুঝানো হয়েছে। আপনি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে যে ওয়েবসাইটটি/ব্লগসাইটটি বানাবেন সেটি আপনার ভিজিটররা যেভাবে দেখতে পাবে, সেটাই হচ্ছে ফ্রন্ট-ইন্ড। ফ্রন্ট-ইন্ড থেকে সাধারণত কিছু দেখা, পড়া বা পাওয়া যায়। তবে ডায়নামিক ওয়েবসাইটের ফ্রন্ট-ইন্ড থেকে কোনো কিছু ইনপুটও করা যায়। যাই হোক, সহজ ভাষায়- একজন ভিজিটর একটা ওয়েবসাইটকে যেভাবে দেখতে পায় সেটা হচ্ছে ঐ ওয়েবসাইটের ফ্রন্ট-ইন্ড।

ওয়ার্ডপ্রেসের ব্যাক-ইন্ড

ব্যাক-ইন্ড হচ্ছে ফ্রন্ট-ইন্ডের সম্পূর্ণ বিপরীত। অর্থাৎ একজন ডেভেলপার যখন একটা ওয়েবসাইট তৈরি করেন/ডেভেলপ করেন তখন তিনি পেছনে যে সব কাজ করেন সেগুলো ব্যাক-ইন্ড। ওয়ার্ডপ্রেসের ব্যাক-ইন্ডকে বলা হয় ড্যাশবোর্ড। একজন ডেভেলপারকে ব্যাক-ইন্ড সম্পর্কে সচেতন হতে হয়। তবে আমি মনে করি, ভালো একজন ডেভেলপার হতে চাইলে ফ্রন্ড-ইন্ড সম্পর্কেও ধারণা ক্লিয়ার থাকতে হবে। কেন? কারণ, আপনি যদি প্রচুর সার্ফিং করেন তাহলে একটা ওয়েবসাইটের ফ্রন্ট-ইন্ড দেখেই আপনি বুঝবেন সাইটটি কোন ধরণের স্ক্রিপ্ট দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। যদি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ডেভেলপ করা হয়ে থাকে তাহলে কী থিম ব্যবহার করেছে, কি কি প্লাগিন ব্যবহার করেছে বুঝতে চেষ্টা করুন। যা আপনার স্কিল দ্রুত ডেভেলপ করবে।
প্রতিদিন ১০০ ওয়েবসাইট গুগল থেকে সার্চ দিয়ে বের করে দেখুন রেন্ডমলি। এর মধ্যে কতগুলো ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে বানানো তা খোঁজে বের করুন। কী থিম ব্যবহার করেছে, কতগুলো প্লাগিন আছে, প্লাগিনসগুলোর নাম কি কি? এসব খোঁজে বের করার চেষ্টা করুন।

হোম ওয়ার্ক

আজকে আপনাদেরকে হোমওয়ার্ক দেবো। তেমন কিছু না। জাস্ট ওয়ার্ডপ্রেস.ওআরজি সাইটে গিয়ে ওয়ার্ডপ্রেস ৩.২.১ ভার্সনটি ডাউনলোড করুন। তারপর আনজিপ করে এর ভেতরে কি কি ফাইল আছে, কতগুলো ফোল্ডার আছে এবং এগুলোর নাম কি তা দেখুন। আপনাকে কিছু না বুঝলেও চলবে। আপনি শুধু ফাইল এবং ফোল্ডারগুলো দেখুন।

তাহলে আজ এই পর্যন্তই। ভালো থাকুন, সাথে থাকুন… 🙂

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *